একযুগ ধরে অফিস ফাঁকি দিয়ে প্রাইভেট চেম্বার করেন ডা. রউফ

প্রকাশিত: ১০:৩৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০

একযুগ ধরে অফিস ফাঁকি দিয়ে প্রাইভেট চেম্বার করেন ডা. রউফ
নিউজটি শেয়ার করুন

চান্দিনায় এক যুগ ধরে সরকারি বিধিমালা উপেক্ষা করে প্রাইভেট চেম্বার করছেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. এমএ রউফ। বিধি মোতাবেক কর্মদিবসে নিজ কর্মস্থলে দায়িত্ব পালনের কথা তার।

 

দীর্ঘ প্রায় এক যুগ ধরে চান্দিনা উপজেলা সদরের জননী মেডিকেল সেন্টার নামে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে সপ্তাহের প্রতি বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রোগী দেখেন তিনি।

 

একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক দীর্ঘ এক যুগ ধরে অফিস চলাকালীন কীভাবে প্রাইভেট চেম্বারে রোগী দেখেন- এমন প্রশ্ন জাগে চান্দিনার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মনে।

 

ওই চিকিৎসকের এমবিবিএস সনদ নিয়ে সন্দেহ জাগে বিভিন্ন চিকিৎসকদের মনেও। অভিযোগ করা হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আনোয়ার উল্যাহর কাছে। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় চান্দিনার জননী মেডিকেল সেন্টারে অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ওই প্রাইভেট হাসপাতালে বিভিন্ন অনিয়ম থাকায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় ওই চিকিৎসক আব্দুর রউফ তাৎক্ষণিকভাবে তার বিএমডিসি নম্বর বলতে না পারায় এবং অফিস চলাকালীন প্রাইভেট চেম্বারে রোগী দেখার কারণে তাকে নিয়ে আসা হয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ে।

 

পরে যাচাই-বাছাই শেষে জানা যায়, তিনি ২০তম বিসিএসে (স্বাস্থ্য) নিয়োগকৃত একজন চিকিৎসক এবং শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, কর্মস্থল ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন সময় প্রাইভেট চেম্বারে রোগী দেখার জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন এবং ভবিষ্যতে এমনটা আর হবে না বলে কথা দিলে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাঈমা ইসলাম, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আনোয়ার উল্যাহ, আরএমও ডা. গাজী মাহমুদুল হাসান ও চান্দিনা থানা পুলিশ।


নিউজটি শেয়ার করুন

আমাদের ফেসবুক পেজ